প্রিয় পাঠক

# এটা SEPT-OCT 2022 সংখ্যা # আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করার জন্য আপনাকে অসংখ্য অসংখ্য ধন্যবাদ # ঈশানকোণ নিয়মিত পড়ার জন্য আপনার প্রতি রইল আমাদের একান্ত অনুরোধ # ফেসবুকে আমাদের পেজ লাইক করুন, আমাদের সঙ্গে জয়েন করুন # আপনার লেখা আমাদের কাছে অমূল্য, লেখা পাঠান এই ঠিকানায়ঃ singhasada4@gmail.com # ঈশানকোণ-এর অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ Google Play Store-এ দেওয়া হচ্ছে # পরবর্তী সংখ্যা হচ্ছে NOV-DEC 2022 সংখ্যা প্রকাশিত হচ্ছে নভেম্বর ১৫ থেকে ২০ তারিখের মধ্যে।

শুভেন্দু দাসের ছড়া

মেঘ-বৃষ্টি-রোদ শুভেন্দু দাস প্রবলভাবে বেঁচে থাকার প্রগাঢ় সব ইচ্ছেগুলো মনখারাপের মেঘলা দিনে আকুল আমার হৃদয় ছুঁলো। মনখারাপের মেঘ কেটে যেই অঝোর ধারায় বৃষ্টি নামে; খুশির প্লাবন দু-কূল ভাসায় নিশীথ রাতের মধ্যযামে। মেঘ-বৃষ্টি-প্লাবন শেষে আকাশ জুড়ে রোদের হাসি; বৃষ্টিস্নাত খুশির দিনে ইচ্ছে তোমার কাছে আসি। ছবি শুভেন্দু দাস অস্তিত্বের ব্যাপ্ত আকাশে জীবনের খোঁজে হন্যে; ভাবনা-স্মৃতির টুকরো কোলাজ স্বস্তি তোমার জন্যে। রংতুলি হাতে দাঁড়িয়ে নির্বাক আমি স্থাণু; সাদা ক্যানভাস তির্যক হাসে উন্মাদ নতজানু। জলরং নয়, তেলরং নয় মাধ্যম হবে কোনটা– সেই…

Read More

বলাই দের ছড়া

থামাও কথা বলাই দে বুঝি না বাপু রকম সকম করছো কেবল বকম বকম, বাক্যবাণে ঝাঁঝরা এ বুক ভীষণ বিষম জখম। ইচ্ছে ছিলো সুরে শুনি তুমি নাকি মস্ত গুণী, ভক্তজনে পেটায় ঢেঁড়া- যেথায় খুশি জ্বালায় ধুনি। আলাপনেই বাড়লো বেলা কখন শুরু করবে খেলা? অপেক্ষাতে ধরেছে ঘুন কখনই বা জমবে মেলা? আকাশ ঝিমায়, ঝিমায় বাতাস, ঝাপটা মারে কেবল “হতাশ” পলেস্তারা পড়ছে খুলে হায়রে হায় কী উপহাস! কথায় লাগাও দাড়ি, কমা, ভাল্লাগেনা আর উপমা, অনেক হলো স্তোকবাক্য- থামাও কথা, চাই যে ক্ষমা।…

Read More

বলাই দে’র ছড়া

মেঘের খেলা বলাই দে বর্ষা নাকি শরৎকাল পড়েছি যে ধন্দে, মেঘগুলো সব পেঁজা তুলো ওড়ে শরৎ ছন্দে। যেখানটাতে থমকে ছিল গরমটা কালকে, এগিয়ে নিয়ে যায় যে বয়ে গরমের সেই তালকে। ভাবি বটে তাদের কথা আছে যারা মাঠে ঘাটে, তেজবাহাদুর সূর্য ব্যাটা বিষম দাপট এ তল্লাটে। মাঠ শুকনো,খাল শুকনো, নদীর জলে টান, চাতক ব্যাকুল,উদাস দুপুর, ওষ্ঠাগত প্রাণ। মেঘ উড়ে যায় রাজার বাড়ি, নাই যে ঝরার তাড়া, দগ্ধ দিনে, দগ্ধ রাতে, সবাই দিশেহারা। যাওনা উড়ে বলাই দে সহজ জীবন করো জটিল…

Read More

সদানন্দ সিংহের ছড়া

হিসিরাম শর্মা সদানন্দ সিংহ রাস্তাঘাটে পথে কিংবা গাছতলাতে হিসি করে বেড়ান যিনি হিসিরাম শর্মা তিনি। কেউ কিছু বললে দু’কথা শোনালে চেন খোলা রেখেই তিনি জবাবটা দেন ইনি। বলেন, ভাই বন্ধুগণ প্রাকৃতিক চাপ সে কারুর নাই হাত যে মোর দোষ নেই যে। নাঙ্গা লোকের বাড়াবাড়িতে কেটে পড়েন সবাই ঝুঁকে ভাবি, লজ্জা নামের হাতুড়ি এনে তার মাথায় দিই ঠুকে।

Read More