ISHANKON A LITERARY WEBZINE IN BENGALI
ঈশানকোণ একটি বাংলা সাহিত্যের ওয়েবজিন

জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি-মার্চ ২০১৮ ইং সংখ্যা
(বছরে চারবার যথাক্রমে জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি-মার্চ, এপ্রিল-মে-জুন, জুলাই-অগাস্ট-সেপ্টেম্বর এবং অক্টোবর-নভেম্বর-ডিসেম্বর মাস নাগাদ ঈশানকোণ প্রকাশিত হবে)
সম্পাদকঃ সদানন্দ সিংহ
Email: singhasada@gmail.com
গল্প
দীপঙ্কর সাহা, সদানন্দ সিংহ, নীহার চক্রবর্তী, বিভাবসু দে, তাপসকিরণ রায়
অনুগল্প
রণজিৎ রায়, সদানন্দ সিংহ, সত্যেন্দ্যু মুখোপাধ্যায়, এ কে এম আব্দুল্লাহ, বিজয়া দেব
মুক্তগদ্য
নকুল রায়, শুভংকর নিয়োগী
নিবন্ধ
এল বীরমঙ্গল সিংহ, বিজনকৃষ্ণ চৌধুরী
অন্যান্য
আলোচনা, লেখাজমা, মতামত
ছড়া
অঞ্জন আচার্য, শফিকুল ইসলাম
কবিতা
নকুল রায়, কল্যাণব্রত চক্রবর্তী, দিব্যেন্দু নাগ, নির্মল বসাক, কাজল সেন, সদানন্দ সিংহ, অভিষেক ঘোষ, দেবাশিস মুখোপাধ্যায়, উমা মণ্ডল, প্রণব বসুরায়, কৃষ্ণেন্দু দাসঠাকুর, চিরশ্রী দেবনাথ, মৌসুমি মণ্ডল দেবনাথ, দেবাশিস কোনার, সমিত ভৌমিক, দিলীপ দাস, কৃত্তিবাস চক্রবর্তী, তমা বর্মণ, রামেশ্বর ভট্টাচার্য, সন্তোষ রায়, মাধব বণিক, শুভেশ চৌধুরী, বিজয়া দেব, অরুণ কুমার সরকার, সুবিনয় দাশ, কিশোর রঞ্জন দে, লক্ষ্মণ বণিক, প্রত্যুষ দেব, বিমলেন্দ্র চক্রবর্তী, রণজিৎ রায়, সুবীর ঘোষ, সুকান্ত মজুমদার, অশোকানন্দ রায়বর্ধন, সন্‌জিৎ বণিক, কাকলি গঙ্গোপাধ্যায়, এ কে এম আব্দুল্লাহ, সুদীপ ঘোষাল, শ্রীয়া ঘোষ সেন, মণিপুরি কবিতা
আর্কাইভ
ঈশানকোণ-১, ঈশানকোণ-২ঈশানকোণ-৩ঈশানকোণ-৪, ঈশানকোণ-৫, ঈশানকোণ-৬
ডাউনলোড
ঈশানকোণ PDF, অন্যান্য বই PDF
[ওয়েব ডিজাইনঃ সদানন্দ সিংহ]

শিবরাম চক্রবর্তী (১৩/১২/১৯০৩ – ২৮-০৮-১৯৮০)  

নিজেকে বলতেন শিব্রাম চক্কোত্তি। কী না করেছেন তিনি। রাজনীতি করেছেন, স্বাধীনতা আন্দোলনের জন্যে জেল খেটেছেন, রাস্তায় কাগজ ফেরি করেছেন, ফুটপাথে রাত্রিবাস করেছেন, সাংবাদিকতা করেছে। সারাজীবন অবিবাহিত থেকে আজীবন মেস-জীবন যাপন করেছেন। কী লিখেন নি উনি – কবিতা, নাটক, উপন্যাস, প্রবন্ধ, রম্যরচনা, গল্প। লেখাই তাঁর পেশা। তাঁর হর্ষবর্ধন-গোবর্ধন চরিত্র অমর হয়ে আছে। তাঁর উপন্যাস ‘বাড়ি থেকে পালিয়ে’ নিয়ে ঋত্বিক ঘটক সিনেমা করেছিলেন। পুরো জীবনটাকেই তিনি ঠাট্টা হিসেবে নিয়েছেন। বিষয়সম্পত্তির প্রতি তাঁর কোনো লোভ ছিল না। একটু বেহিসেবী ছিলেন বলে আর্থিক কষ্টে ভুগেছেন। আর্থিক সমস্যার জন্যেই শরৎচন্দ্রের উপন্যাস ‘দেনা পাওনা’-র নাট্যরূপ দিয়ে তিনি লিখেছিলেন ‘ষোড়শী’ নাটক। সে নাটক শিশিরকুমার ভাদুড়ী মঞ্চস্থ করেছিলেন এবং সে নাটক প্রতিদিন হাউসফুল থাকতো। সে নাটকের লভ্যাংশের টাকা শিশিরকুমার ভাদুড়ীর কাছে নিতে এসে তিনি জানতে পারেন লভ্যাংশের টাকা শরৎচন্দ্র নিজে এসে নিয়ে চলে গেছেন। আজো শিবরাম চক্রবর্তীর মতো একজন হাসির গল্প ও রম্যরচনার লেখক তৈরি হয়ে ওঠেনি।  

প্রসঙ্গঃ ভেদাভেদ

"শত শত বছর ধরে মানুষের প্রতি অপমানের বিষ আমরা বইয়ে দিয়েছি ভারতবর্ষের নাড়ীতে নাড়ীতে। হীনতার অসহ্য বোঝা চাপিয়ে দিয়েছি শত শত নত মস্তকের উপরে; তারই ভারে সমস্ত দেশ আজ ক্লান্ত, দুর্বল।" --- রবীন্দ্রনাথ, চারিত্রপূজা, মহাত্মাজির পুণ্যব্রত।
“কেন যে একজনের ছোঁয়া দুধ বা খেজুর রস বা গুড় খাইলে অপরাধ নাই, জল খাইলেই অপরাধ --- কেন যে যবনের প্রস্তুত মদ খাইলে জাত যায় না, অন্ন খাইলে জাত যায় এসব প্রশ্ন জিগ্গাসা করিলে ধোবা নাপিত বন্ধ করিয়াই মুখ বন্ধ করিয়া দিতে হয়।" --- রবীন্দ্রনাথ, পরিচয়, হিন্দু- বিশ্ববিদ্যালয়।
"আমাদের দেশে হরিজন-সমস্যা এবং হিন্দু-মুসলমান সমস্যার মূলে যে মনোবিকার আছে তার মতো বর্বরতা পৃথিবীতে আর আছে কিনা জানিনে।" --- রবীন্দ্রনাথ, চারিত্রপূজা, ভারতপথিক রামমোহন রায়
“এ দেশ কোনো বিশেষ একটি জাতি বা বিশেষ একটি সভ্যতার দেশ নয়। এ দেশে আর্যসভ্যতাও যেমন সত্য, দ্রাবিড় সভ্যতাও তেমনি সত্য, এ দেশে হিন্দুও যত বড়ো, মুসলমানও তার চেয়ে নিতান্ত কম নয়।" --- রবীন্দ্রনাথ, শিক্ষা, ছাত্রশাসনতন্ত্র.

প্রসঙ্গঃ মুসলমান

“এক্ষণে যদি ভারতবর্ষীয় জাতি বলিয়া একটা জাতি দাঁড়াইয়া যায়, তবে তাহা কোনোমতেই মুসলমানকে বাদ দিয়া হইবে না।" --- রবীন্দ্রনাথ, সমাজ, কোট বা চাপকান।
“মুসলমানকে যে হিন্দুর বিরুদ্ধে লাগানো যাইতে পারে এই তথ্যটাই ভাবিয়া দেখিবার বিষয়, কে লাগাইল সেটা তত গুরুতর বিষয় নয়। শনি তো ছিদ্র না পাইলে প্রবেশ করিতে পারে না; অতএব শনির চেয়ে ছিদ্র সম্বন্ধেই সাবধান হইতে হইবে।" --- রবীন্দ্রনাথ, সমূহ, ব্যাধি ও প্রতিকার।
"আমাদের হিন্দুসমাজে গোহত্যা পাপ বলে গণ্য, অথচ সেই উপলক্ষে মানুষ-হত্যা ততদূর পাপ বলে মনে করি না। মুসলমানের অন্ন খেয়েছে বলে শাস্তি দিই, মুসলমানের সর্বনাশ করেছে বলে শাস্তি দিই না।" --- রবীন্দ্রনাথ, সাহিত্যের পথে।
“মুসলমান একটি বিশেষ ধর্ম কিন্তু হিন্দু কোনো বিশেষ ধর্ম নহে। হিন্দু ভারতবর্ষের ইতিহাসের একটি জাতিগত পরিণাম।" --- রবীন্দ্রনাথ, পরিচয়, আত্মপরিচয়।
"যখন তাজমহলের সামনে গিয়ে দাঁড়াই তখন এ তর্ক মনে আসে না যে, এটা হিন্দুর কীর্তি না মুসলমানের কীর্তি। তখন একে মানুষের কীর্তি বলেই হৃদয়ের মধ্যে অনুভব করি।" --- রবীন্দ্রনাথ, জাপানযাত্রী।

HOST ANYWHERE

Publish your website to a local drive, FTP or host on Amazon S3, Google Drive, Github. Don't limit yourself to just one platform or service provider. Lorem ipsum dolor sit amet, consectetur adipisicing elit. Laboriosam, nisi, ea. Excepturi dolores, laborum ipsum soluta aliquid, ullam repellat ratione iste harum voluptatem? Alias id blanditiis, sequi possimus dolorem dolorum.

IMAGE/CONTENT SLIDER

Create a responsive, touch-swipe slideshow with Mobirise bootstrap slider. Add images, text, buttons to slides, set autoplay, full-screen, full-width or boxed layout. Lorem ipsum dolor sit amet, consectetur adipisicing elit. Unde sunt, illo quo ipsa. Laboriosam voluptatem sunt nisi velit incidunt labore, sapiente pariatur ipsam fugiat doloremque asperiores eos ipsum, eveniet cum.

CONTACT FORMS

Easily add subscribe and contact forms without any server-side integration. Just link your email to form and get submissions instantly. Lorem ipsum dolor sit amet, consectetur adipisicing elit. Accusantium id perspiciatis, sint odit error animi veniam omnis cupiditate distinctio, a quidem deleniti laborum maiores optio laudantium earum vel! Sint, rerum.

ISHANKON a literary webzine in bengali ঈশানকোণ একটি সাহিত্যের ওয়েবজিন জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি-মার্চ ২০১৮ ইং সংখ্যা Please send your literary works to us আগামী সংখ্যার জন্যে এখনই লেখা পাঠাবার অনুরোধ রইল

২৫ শে মার্চ ২০১৮, কিছু কথা 

এসত্তর দশকের কবিতা আন্দোলনের একজন সৈনিক ছিলেন কবি দিব্যেন্দু নাগ। তাঁর বাড়ি আগরতলায়। একসময় ‘ভাষা’-র একজন সক্রিয় সদস্য ছিলেন। পেশায় বাস্তুকার হলেও মনেপ্রাণে তিনি একজন কবি ছিলেন, যদিও এখনকার বেশির ভাগ কবি তাঁর কবিতার সাথে পরিচিত নন। কবিতায় তিনি একপ্রকার বেআব্রু। সামাজিক একটা দায়বদ্ধতা তাঁর কবিতায় পাওয়া যায়। এছাড়াও তিনি ছিলেন একজন দক্ষ অনুবাদক। সমসাময়িক অনেক কবির কবিতার ইংরেজি অনুবাদ সাহিত্য একাডেমির ‘ইন্ডিয়ান লিটারেচর’-এ প্রকাশিত হয়েছিল। এবারের সংখ্যায় অকাল প্রয়াত কবি দিব্যেন্দু নাগের কিছু কবিতা দেয়া হল।
আরেকজন অকাল প্রয়াত কবি দীপঙ্কর সাহা কবিতার পাশাপাশি কিছু গল্পও লিখেছিলেন। প্রয়াত কবি বিজনকৃষ্ণ চৌধুরীও ছিলেন একজন ভালো নিবন্ধকার। এই দুজন কবির লেখা একটা করে গদ্য এবার দেয়া হয়েছে।
যাঁরা লেখা পাঠিয়ে সহযোগিতা করেছেন তাঁদেরকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। ভবিষ্যতেও আপনাদের সহযোগিতা কাম্য। পারস্পারিক সহযোগিতা এবং বিশ্বাস কোনো সৃষ্টিশীল প্রক্রিয়াকে বাঁচিয়ে রাখে। কোনো প্রাণকে বাঁচিয়ে রাখে। ঈশানকোণ-এর পক্ষ থেকে সবার জন্যে রইল শুভকামনা।    

এবারের লেখার আকর্ষণ

নিবন্ধ
এল বীরমঙ্গল সিংহের
কানহাইলাল ও মণিপুরি থিয়েটার

'নাট্যকলায় কানহাইলাল একজন পরিচিত নাম। তাঁর জীবনী ও নাট্যচর্চা নিয়ে এই নিবন্ধ।  (পড়ার জন্যে ক্লিক করুন)

নিবন্ধ
বিজনকৃষ্ণ চৌধুরীর
উপশয়ী সংবর্ত

প্রতিবাদের নামে দুষ্কৃতিকারীরা জনগণের নামে যেসব ধ্বংসাত্মক কাজ চালায়, তার থেকে মুক্তি কী?  (পড়ার জন্যে ক্লিক করুন)

মুক্তগদ্য
নকুল রায়ের
বিষণ্ণ চোখের ভাষা

কবির কাছে কবিতা  কী? একজন খুনীর সঙ্গে কবির পার্থক্য কীসের ওপরে নির্ভর করে।  (পড়ার জন্যে ক্লিক করুন)

মুক্তগদ্য
শুভংকর নিয়োগী
অত্যাশ্চর্য ক্ষমতা

অত্যাশ্চর্য ক্ষমতা কি সত্যিই আছে? তাকে কি অর্জন করা যায়? এসব নিয়ে লেখকের ব্যক্তিগত মতামত। (পড়ার জন্যে ক্লিক করুন)

এবারের লেখার আকর্ষণ

গল্প
দীপঙ্কর সাহার 
ব্রিজ ধ্বসে যায়

সারা ব্রিজ থরথর করে কাঁপে। নদী ও প্রকৃতি স্তব্ধ। ঐ মুহূর্ত সুনন্দ অনুভব করে পদ্মাসনের মাঝে --- চলচ্চিত্রে দেখা দৃশ্যের মতো ব্রিজ উড়ে যাচ্ছে ভয়ানক শব্দে! (পড়ার জন্যে ক্লিক করুন)

গল্প
সদানন্দ সিংহের
বাদুড় কেল্টু শ্যামু ভূপেশ এবং অণিমা

এক দুই তিন চার পাঁচ। পাঁচটা বাদুড়। সারি বেঁধে খোলা ইলেকট্রিক তারে স্থির ঝুলে রয়েছে। সাতসকালে ভূপেশ মাথার ওপর হাতদুটো রেখে দৃশ্যটা দেখে।   (পড়ার জন্যে ক্লিক করুন)

গল্প
নীহার চক্রবর্তীর
তোমারও অসীমে

সুধামামা বিয়ে করেছে। আমরা তার কিছুই জানতাম না। মাকে ফোনে জানিয়েছে মার এক পুরনো বন্ধুপাড়া থেকে। সেও তেমন একটা জানে না।  (পড়ার জন্যে ক্লিক করুন)

গল্প
বিভাবসু দের  
চিঠি

আজ রোববার, কলেজ ছুটি, কাজকর্মও তেমন কিছুই নেই। তাই সকাল থেকে বেশ আমোদ করে ল্যাপটপে সিনেমা দেখেই দিনটা কাটল। (পড়ার জন্যে ক্লিক করুন)

গল্প
তাপসকিরণ রায়ের  রমাকান্তনামা—না পাওয়া

রাতগুলি প্রায়ই নিষ্ফলা যায়। রমাকান্ত মানসিক অতৃপ্তিতে ভুগতে থাকেন। স্ত্রী কমলিকা তাঁকে বয়সের খোঁটা দেন, বুড়ো বয়সে এত ইচ্ছে আসে কোথা থেকে ? (পড়ার জন্যে ক্লিক  করুন) 

এবারের লেখার আকর্ষণ

অনুগল্প
রণজিৎ রায়ের
মেজাজ

দেবু তথা দেবপ্রসাদ সেনচৌধুরি তদানীন্তন পূর্ব পাকিস্তানের ছেলে। ত্রিপুরায় দিদির বাড়ি থেকে পড়াশোনা করে। উচ্চবর্ণ ও উচ্চবিত্ত পরিবারের সন্তান।  (পড়ার জন্যে ক্লিক করুন)

অনুগল্প
সদানন্দ সিংহের
রে লাড্ডু

রে লাড্ডু, তুই কেমন চরিত্রবান মানুষ রে ? মানুষখেকোর জঙ্গল কেনোই বা তোর অ্যামাজন রে? তোর ছায়ার নিচেই তো অ্যানাকোন্ডারা থাকে রে! (পড়ার জন্যে ক্লিক করুন)

অনুগল্প
সত্যেন্দ্যু মুখোপাধ্যায়ের
রূপকথার গপ্পো এক

একদেশে এক রাজা ছিলেন। তাঁর হাতিশালে হাতি, ঘোড়াশালে ঘোড়া, লোক-লস্কর সেপাই-সান্ত্রি ঢাল-তরোয়াল সব ছিল। কিন্তু মনে কোন সুখ ছিল না।  (পড়ার জন্যে ক্লিক করুন)

অনুগল্প
এ কে এম আব্দুল্লাহের
উৎসর্গ

অনেকদিন পর স্বনামধন্য একটি পত্রিকা অফিসে বসে আছি। বাল্যবন্ধু মলয় পত্রিকার সাহিত্যসম্পাদক হিসাবে কয়েক বছর থেকে কাজ করছে।  (পড়ার জন্যে ক্লিক করুন)

অনুগল্প
বিজয়া দেবের
ছায়াচিত্র

সোমনাথকে চিনতাম। খুব সুন্দর গান গাইত। একেবারে সাদাসিধে খোলামেলা মানুষ ছিল। তারপর সে কোথায় যেন চলে যায়। (পড়ার জন্যে ক্লিক করুন)

এই লেখাটা শেয়ার করুন