প্রিয় পাঠক

# এটা JULY-AUG 2022 সংখ্যা # আমাদের ওয়্বেবসাইট ভিজিট করার জন্য আপনাকে অসংখ্য অসংখ্য ধন্যবাদ # ঈশানকোণ নিয়মিত পড়ার জন্য আপনার প্রতি রইল আমাদের একান্ত অনুরোধ # ফেসবুকে আমাদের পেজ লাইক করুন # আপনার লেখা আমাদের কাছে অমূল্য, লেখা পাঠান এই ঠিকানায়ঃ singhasada4@gmail.com # ঈশানকোণ-এর অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ Google Play Store-এ দেওয়া হচ্ছে # পরবর্তী সংখ্যা হচ্ছে SEPT-OCT 2022 সংখ্যা।

দেবাশিস কোনারের কবিতা

কারুকার্য  দেবাশিস কোনার ছোঁয়াতে মুছে যাবে কল্পনার ফানুস সে বিশ্বাস ছিল না কোনোদিন ঘরে ধুপ ধুনো জ্বেলে পুজো যখন মন খারাপ করবার অর্থ কি? এসো আরতির চিতাভস্ম জুড়ে খেলি প্রেমের ঘাত – প্রতিঘাত হারিয়ে যাই ছেলেবেলার গভীর গহনে সাঁতার শিখি অনাবিল আনন্দে! সত্যি যদি বুঝে থাক অকল্যাণ সাধ জেগেছিল অকারণ মলিন মর্মমূলে তাহলে প্লিজ এসো যাপনের বিষ বাষ্প ভুলে কারুকার্যে মাতি! বন্ধন দেবাশিস কোনার স্নায়ুতে খেলা করে অভিযান স্রোত, রক্ত কথা বলে –– বড্ড বেশি কথা তাই আলো থাকে…

Read More

রুমা ঢ্যাং অধিকারীর কবিতা

ভ্রমণ রুমা ঢ্যাং অধিকারী চারিদিকে ঘাতকের ফাঁদ পাতা রাস্তা এ কথা ভাবলেই বস্তুত বিয়োগান্তক গল্প নিয়ে আহার করি তিলাঞ্জলি। নিবিড় সংক্রান্তি ভ্রমণ সম্পর্কে যে যার মতো বেছে নিই অভিজ্ঞানসমূহ স্বপ্নের জলরাশি শুষে লিখে রাখি শতকোটি দেবদূত মন ভেদ করে তবু সচল মাংসের দাওয়া নিঃশব্দে সেরে রাখে আচমন হে নির্বাণ, তোমার সাতটা স্বরের ভেতর কুসুমপানা শব্দ বহন করে পৌঁছে দাও মর্মর পাতার অবগাহন সবুজমোড়া নীলগিরির পোশাক ছাড়িয়ে বলে উঠুক তোমার পালিত ধাতু

Read More

সুবীর ঘোষের কবিতা

নিজস্ব পিপাসা সুবীর ঘোষ এ পৃথিবীর কাছে আর কতটুকু বেশি চাই বলো; শুধু দুটো শুকনো পাতা যতক্ষণ হাতের আদরে ভেঙে না যাচ্ছে আর শুয়ে যাচ্ছে ধুলোর শয্যায় ততক্ষণ চোখের বুরুশে মাখি, উড়ে যাওয়া বয়সের রঙ। ভাঙা কুঁড়েঘর খুলে মধ্যরাতে কারা নেয় বৃষ্টির মাপ! কখনো কী নদীপথে ডুবে যাওয়া পিপাসাকে নিজস্ব করেছি ? এ পৃথিবীতে কারো যেন চেনা রাস্তা আর কোনোদিন ভুলপথে ঘুরতে না থাকে। প্রজাপতি যেন ভালোবাসা দেয় চিরদিন। এসব কী বেশি চাওয়া ? কঞ্জুসের জমারও অধিক ! সবুজে…

Read More

সদানন্দ সিংহের কবিতা

ইল্যুশান সদানন্দ সিংহ পিঠে রুকসেক, পায়ে ক্যাম্পাস, এইসব জীবনের এই বকধার্মিক তালগোল ক্রমশ ফিকে হতে হতে বিদ্যুৎপৃষ্ট রাত্রি উৎসবমুখর হিরণ্ময় দিন আর তিলে তিলে সব ধূসর হয়ে আজো বেঁচে থাকে বা বাঁচিয়ে রাখে তারপর আকাশটাই প্রদীপ হয়ে যায় কিংবা ধরো প্রদীপটাই এক আকাশ ইল্যুশান নিয়েই বেঁচে থাকি ধুকধুক চিরকাল

Read More

রওশন রুবীর কবিতা

ও কথা গো আদর বিছাও মঙ্গা কেটে যাক রওশন রুবী অনেক কথা জমে আছে অনেক কথার খই সব ঘটে কি যায় গো রাখা সঠিক পাত্র কই? পূব পশ্চিম খুঁজে খুঁজে পানামনগর এসে ছন্নছাড়া আধখানা মন ক্লান্ত অবশেষে, আধখানা মন চুরি গেছে সেই যে একাত্তর বধ্যভূমির বুকে ফিরে দুঃখের তেপান্তর। সাত কোটি লোক সবুজ খামে লাল নকশা আঁকে মেঘনা তিস্তা গোমতি আর সকল নদীর বাঁকে। অনেক কথা জমে আছে অনেক কথার বই আমার কথা খুঁজতে এসে কথা পাবে কই? অর্ধেক…

Read More

শুভেশ চৌধুরীর কবিতা

বিজ্ঞান শুভেশ চৌধুরী এক কে এক দিয়ে গুন করে এক কেই পাই শূন্য র সাথে কোন জারিজুরি খাটে না সবাই কে ঘোল খাইয়ে ছাড়ে আর পদার্থ ঐ পদের অর্থ আছে পারমাণবিক ভর ওজনও আছে অথচ নিবারণ শুধু ভালোবাসাবাসি করে শ্রদ্ধা না অশ্রদ্ধা তাহার ওজন আছে কি নেই পদার্থের পদবাচ্য কিনা জানা নেই অনেক অনেক ভালোবাসা কিন্তু সে পায় পদার্থ বলিয়া নয়, মানুষ বলিয়া ইহা ও রসায়ন শাস্ত্রের অস্তিত্ব হেতু পড়েও জানি, না পড়েও জানি শুভেশ চৌধুরী বিষয়টি প্রকৃতি থেকে…

Read More

প্রসেনজিৎ রায়ের কবিতা

দ্বন্দ্ব প্রসেনজিৎ রায় দ্বন্দ্বটা নিতান্তই ব্যক্তিগত ছিল… মানসিক টানাপোড়েনটাও… লোকে কি ভাববে……? ভাবতে ভাবতে ভাবনাতেই পা আটকে গেল, হতে পারলাম না দেও বা মনু, না হওয়া হলো বিশাল আকাশ….. বা তার নীচের স্বাধীন শালিক বা চড়ুই। পড়ে রইলাম তারও নীচে, খুঁজে পেলাম একেবারে তলানিতে স্বীয় অস্তিত্বের… ছিঁটেফোঁটা মাত্র, আজ তবে সম্বিত ফিরলো.. দ্বন্দ্বটা যে নিতান্তই ব্যক্তিগত ছিল…

Read More

জহির খানের কবিতা

সরকার বা আমাদের আগামী জহির খান মধ্যবিত্ত কাঁটাবিদ্ধ চোখ স্বপ্ন দেখেদেখে ভোরের আকাশ, দেখে জলের গহীনদেখে মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারীএইসব দেখাদেখি বিদেশিরাও জানে! তবু চুপচাপ সয়ে নেয় সু মহোদয়গণরাত শেষে দিন, শুধুই ধুলোর ওড়াউড়ি নামে বেনামে দখল বাণিজ্য করেএকদল চাটুকার চ্যালাদের মুখ মুখে বুলি ফুটে এই বেশ চলে দেশ, আগামীআগামী, দোয়া করি তাড়াতাড়ি সুস্থ হও অতঃপরএকদিন আগামী তোমার সেবা করছেএই স্বপ্ন দেখো আর হাত মেরে চলো… অতঃপর একদিন চলে যাই জহির খান একদিন খুব করে নড়ে ওঠেসবুজ পাতার টুপিঝিরিঝিরি বৃষ্টি…

Read More

রূপালী মুখার্জির কবিতা

বেহাগ রাগে রূপালী মুখার্জি একটা নিস্পাপ ভোর আর তার গায়ে খানিক বাৎসল্য রোদ পাট পাট চুল আঁচড়ে নদী তখন অপেক্ষায় নৌকো সুর তুলে মিলিয়ে যায় গাংচিলের বন্দরে সে আসবে বলে, বুড়ো শিবতলার মন্দির ঘন্টা বাজায় পূজারির সূর্যশ্লোকে অনেক দিন পর নতুন জামা কাপড় পরে ইস্কুল সেজে উঠে স্বপ্নরা পায়ে পায়ে কৃষ্ণচূড়া র ছায়াতলে, প্লাস্টিকে মোড়া বইপত্তর নিয়ে কোলাহল হেঁটে চলে আকাশি রোদ গায়ে মেখে, শহর আজ রিক্সায় চেপে মুঠো মুঠো আলোর গল্প নিয়ে, রোয়াক আড্ডায় মাতে চায়ের খুরিতে, দু…

Read More

সমর চক্রবর্তীর কবিতা

আভরণ সমর চক্রবর্তী তিনবেলা রোজ পাঁচালির সুরে ‘ধর্ম-ঠাকুর’ পাঠ করে সোনা, তার ঘরটি মনে হয় মন্দির। পবিত্র! যেখানে নগ্ন হওয়াটা এক্কেবারে মানা। হে ঈশ্বর! তোমার সাথে দেখা করতে রক্ত পোশাক পরেই যাবো। তোমার পুরোহিতকে বলে দিও চিতায় যাতে আমার বস্ত্র না খোলে। বাঁশির সুর সমর চক্রবর্তী একটু চুপ করে বসুন। চোখ দুটো বন্ধ করে এবার ভাবুন। কী ? এক দগ্ধ জ্যৈষ্ঠের দুপুরে বাঁশিতে বেজে যাচ্ছে ডানামেলা সুর। সুখের ঢেউয়ের মতো ডেকে যাচ্ছে অবিরাম কালো ছায়া নিবিড় পাহাড়ে। নতুন নামে…

Read More