অগ্নিপথ প্রকল্প

অগ্নিপথ প্রকল্প

সদানন্দ সিংহ

প্রকল্পের নাম অগ্নিপথ প্রকল্প বা Agnipath Scheme এবং এটি সেনাবাহিনিতে চার বছর মেয়াদি নিয়োগের জন্যে ভারত সরকারের এক নতুন প্রকল্প। এই নিয়োগ প্রকল্পের ঘোষণা হতেই ভারতের দিকে দিকে বেকার চাকুরিপ্রার্থীদের বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। রেল রোকো, রাস্তা রোকো, রেল পোড়াও, গাড়ি পোড়াও ইত্যাদি বিভিন্ন ধ্বংসাত্মক কাজকর্মে বেকার চাকুরিপ্রার্থীরা লিপ্ত হয়ে পড়ে। চাকুরিপ্রার্থীদের হয়তো মনে হচ্ছিল এটা চাকুরির নামে এক ভাঁওতাবাজি। পরে ভারত সরকারও এটাতে আরো কিছু সুবিধার কথা ঘোষণা করেন। বেশ কিছুদিন বিক্ষোভ চলার পর আস্তে আস্তে সেটা প্রশমিত হয়ে পড়ে। এখন নিয়োগের প্রক্রিয়াও শুরু হয়ে গেছে এবং বেশ সাড়াও পাওয়া যাচ্ছে। বিশেষ করে নৌবাহিনিতে ভর্তি হওয়ার জন্যে নাকি হাজার হাজার মহিলা তাদের নাম নথিভুক্ত করিয়েছেন। এই প্রকল্পের অধীনে যাঁরা নিযুক্ত হবেন তাঁরা হবেন অগ্নিবীর।

এখন এই প্রকল্প নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করছিঃ-

অগ্নিবীরদের কী কী সুবিধা পাওয়া যাবে না

১) চার বছর চাকুরির পর কোন পেনশন পাওয়া যাবে না।
২) কোন গ্র্যাচুইটির টাকা পাওয়া যাবে না।
৩) বেতনের সাথে কোন D.A. পাওয়া যাবে না। তবে অন্যান্য ভাতা যেমন রেশন, ড্রেস, ট্র্যাভেল, হার্ডশিপ ও রিস্ক ভাতা ইত্যাদি পাওয়া যাবে।
৪) প্রাক্তন সৈনিকরা যেসব সুবিধা [যেমন ক্যান্টিনের সুবিধা, চিকিৎসার সুবিধা ইত্যাদি] পান সেসব সুবিধা পাওয়া যাবে না।

৫) কোন রকম প্রোভিডেণ্ড ফাণ্ডে টাকা জমা হবে না।

অগ্নিবীরদের কী কী সুবিধা দেওয়া হবে

১) বেতন ১ম বছরে ₹ 30,000/- (plus applicable allowances.)
২) বেতন ২য় বছরে ₹33,000/- (plus applicable allowances.)
৩) বেতন ৩য় বছরে ₹ 36,500/- (plus applicable allowances.)
৪) বেতন ৪র্থ বছরে ₹ 40,000/- (plus applicable allowances.)
৫) মাসিক বেতনের ৩০% সেবানিধি প্রকল্পে জমা দিতে হবে। সরকারও সমপরিমাণ টাকা জমা দেবে। চারবছর পরে মোট Rs10,0,4000 + সুদ ডিসচার্জড করার সময় দেওয়া হবে।
৬) চাকুরিরত অবস্থায় মৃত্যু [Natural death, Accident, By attacked] হলে ইন্সিউরেন্স বাবদ ৪৮ লাখ টাকা নমিনি পাবে।
৭) ইন্সিউরেন্স বাবদ চাকুরিরত অবস্থায় প্রতিবন্ধী হয়ে গেলে এবং তার পরিমাণ শরীরের ৭৬%-১০০% হলে ৪৮ লাখ টাকা, ৫০%-৭৫% হলে ৩৬ লাখ এবং ২০%-৪৯% হলে ২৪ লাখ টাকা পাওয়া যাবে।
৮) চাকুরিরত অবস্থায় Natural death কারণে মৃত্যু হলে ইন্সিউরেন্স বাবদ ৪৮ লাখ টাকার সঙ্গে সেবানিধি প্রকল্পে যত টাকা জমা (নিজের+সরকারের দেওয়া) হয়েছে সুদ সহ দেওয়া হবে।
৯) চাকুরিরত অবস্থায় Accident, By attacked কারণে মৃত্যু হলে ইন্সিউরেন্স ৪৮ লাখ এবং আরো এককালীন এক্সগ্রেশিয়া বাবদ ৪৪ লাখ টাকা পাওয়া যাবে। সঙ্গে সেবানিধি প্রকল্পে যত টাকা জমা (নিজের+সরকারের দেওয়া) হয়েছে সুদ সহ দেওয়া হবে এবং মৃত্যুর দিন থেকে চারবছর পূর্ণ হবার দিন পর্যন্ত যদি চাকুরি বাকি থাকে তার পুরো বেতনের টাকাও দেওয়া হবে।
১০) ইন্সিউরেন্স ছাড়াও আরো এককালীন এক্সগ্রেশিয়া বাবদ চাকুরিরত অবস্থায় Accident, By attacked কারণে প্রতিবন্ধী হয়ে গেলে এবং তার পরিমাণ শরীরের ৭৬%-১০০% হলে ৪৪ লাখ টাকা, ৫০%-৭৫% হলে ২৫ লাখ এবং ২০%-৪৯% হলে ১৫ লাখ টাকা পাওয়া যাবে। সঙ্গে সেবানিধি প্রকল্পে যত টাকা জমা (নিজের+সরকারের দেওয়া) হয়েছে সুদ সহ দেওয়া হবে এবং মৃত্যুর দিন থেকে চারবছর পূর্ণ হবার দিন পর্যন্ত যদি চাকুরি বাকি থাকে তার পুরো বেতনের টাকাও দেওয়া হবে।
১১) বছরে ত্রিশ দিন ছুটি পাওয়া যাবে।
১২) ডাক্তারের উপদেশ অনুযায়ী মেডিকেল ছুটি পাওয়া যাবে।
১৩) ভারতীয় সেনাবাহিনির নিয়মানুযায়ী সম্মান ও অ্যাওয়ার্ড পাওয়ার অধিকার থাকবে।
১৪) চাকুরিরত অবস্থায় সেনাবাহিনির সব Medical & CSD Facilities পাবে।
১৫) চারবছর পর অগ্নিবীরদের ২৫% ভারতীয় সেনাবাহিনিতে ১৫ বছরের জন্য নিযুক্ত করা হবে।
১৬) ডিসচার্জড হয়ে যাওয়া বাকিদের পুলিশ, প্যারা মিলিটারি ও অন্যান্য সিকিউরিটি ফোর্সের নিয়োগের সময় অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।
১৭) চারবছর পর সবাইকে ‘Agniveer’ Skill Certificate দেওয়া হবে।
১৮) দশম মান উত্তীর্ণ হয়ে যেসব অগ্নিবীর ঢুকেছিল তাদেরকে চারবছর চাকুরি পূর্ণ হবার পর Class 12th Certificate দেওয়া হবে।

অগ্নিবীরদের কাজে যোগদানের সময় কী কী শর্ত মানতে হবে

১) নথিভুক্তের তারিখ থেকে চাকুরির তারিখ ধরা হবে।
২) ট্রেনিং সময়টুকু চাকুরির মেয়াদের মধ্যে বলে গণ্য হবে।
২) সময়ে সময়ে যে ডিউটি দেয়া হবে তা পালন করতে হবে।
৩) দেশের যে-কোনো জায়গায় পোস্টিং হবে।
৪) অগ্নিবীরদের যেকোনো রেজিমেন্টে বা অন্য ইউনিটে পোস্টিং হবে।
৫) চারবছর পূর্ণ হবার পর সব অগ্নিবীরদের ডিসচার্জড করা হবে।
৬) Official Secrets Act, 1923 আইনানুযায়ী চাকুরির পরও সেনাবাহিনি সংক্রান্ত তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষা করতে হবে।

অগ্নিবীরের জন্যে নাম নথিভুক্ত কীভাবে করবেন

১) কনুই থেকে হাত পর্যন্ত ছাড়া শরীরের অন্য জায়গায় স্থায়ী ট্যাটু থাকলে অগ্নিবীরের যোগ্য নয়। বিমানবাহিনির ক্ষেত্রে প্রার্থীর সর্বনিম্ন উচ্চতা ১৫২.৫ সেমি, নৌবাহিনির ক্ষেত্রে ১৫৭ সেমি (মহিলা-১৫২ সেমি), সাধারণ সেনাবাহিনির ক্ষেত্রে ১৫৭ সেমি থেকে ১৭৩ সেমি যেটা পদ এবং রাজ্যের অধিবাসী অনুযায়ী বিভিন্ন রকম (ওয়েবসাইট দেখে নিন)। সুতরাং কম উচ্চতার লোকেরা রেজিস্টার করলেও লাভ  হবে না। বয়েস হতে হবে ১৭.৫ থেকে ২১ বছরের মধ্যে। শুধুমাত্র ২০২২ এবছরের জন্যে বয়সের উর্ধসীমা ২৩ করা হয়েছে।

২) অগ্নিবীর প্রকল্পে নাম রেজিস্টার করার জন্য আপনার একটা ইমেল থাকতে হবে। যদি সেটা না থাকে তাহলে আগে ইমেল তৈরি করে নিন। তারপর যে বাহিনিতে ( সাধারণ সেনাবাহিনি, বিমানবাহিনি, নৌবাহিনি) যোগ দিতে চান সেই সাইটে গিয়ে রেজিস্টার করুন এবং লগইন করুন। নিচে লিংক দেয়া আছে। ওখানে ক্লিক করুন।

৩) অ্যাপ্লাই করার আগে হাতের কাছে শিক্ষাগত যোগ্যতার সার্টিফিকেট, ফটো, সাইন ইত্যাদি রেডি রাখুন। মনে রাখবেন একই বাহিনিতে আগ্নিবীরের বিভিন্ন পদ আছে। পদ অনুযায়ী শিক্ষাগত যোগ্যতার মানও আলাদা রকমের। তিন বাহিনির ওয়েবসাইট ভিজিট করে আগেই তা জেনে নিন।

৪) ফিজিক্যাল টেস্ট এবং মেডিকেল টেস্টে উত্তীর্ণ হলেই কেবল লিখিত পরীক্ষায় ডাকা হবে। বাহিনি ভেদে লিখিত পরীক্ষার মানও আলাদা। তাতে উত্তীর্ণ হলেই কেবল নিযুক্তি।

বাহিনি ত্রয়ের ওয়েবসাইটের লিংক

১) নৌবাহিনিঃ- https://www.joinindiannavy.gov.in/en/page/agniveer-ways-to-join.html

২) সেনাবাহিনিঃ- https://joinindianarmy.nic.in/BRAVOApplicantEligibilityAgniveer.htm

৩) বিমানবাহিনিঃ- https://indianairforce.nic.in/agniveer/