গুগল  করলে জেল

গুগল  করলে জেল

সদানন্দ সিংহ

গুগল বা গোগল যে নামেই তাকে ডাকা হোক না কেন তিনি এই ডিজিটাল যুগের অবতার। তিনি যেন ডিজিটাল যুগের ভগবান যিনি সর্বত্র বিরাজমান কিন্তু তাকে চোখে দেখা যায় না, তাকে কেবল আমাদের কাজের মাধ্যমে অনুভব করতে পারি। গুগল ছাড়া আমরা এখন খোঁড়া হয়ে গেছি। আমাদের অজানা অনেক তথ্য কয়েক সেকেণ্ডের মধ্যেই গুগল আমাদের সামনে হাজির করে দেয়। প্রতিদিন কোটি কোটি লোক আন্তর্জালে গুগলের সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করে গবেষণা থেকে শুরু করে দৈনন্দিন কাজ সারে।

তবে অনেকেই জানেন না যে কেউ যদি গুগলে গিয়ে বেআইনি কিছু সার্চ করেন তাহলে তাঁর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে, এমন কি তাঁর জেলও হতে পারে। কারণ কে কি সার্চ করছে তা গুগলের অ্যালগেরিদমের মাধ্যমে ক্লাউডে সবকিছু স্টোর হয়ে যায়। তারপর আর্টিফিসিয়েল ইন্টেলিজেন্স ব্যবস্থা বলে দেয় আপনি কি চাইছেন বা খুঁজছেন। আপনি নিশ্চয় লক্ষ করেছেন যে আপনি যখন গুগলে কিছু সার্চ করছেন তার মুহূর্তের মধ্যেই আপনার সামনে সেই সার্চ করা জিনিসের বিজ্ঞাপন গুগল আপনার সামনে তুলে ধরে।

আমাদের দেশে অনেকগুলি ব্যাপার আছে যা আইনবিরুদ্ধ। সেগুলি নিয়ে আপনি যদি সার্চ করেন তাহলে তৈরি থাকুন মামলা-জেল-জরিমানার। নিচে সেগুলির কিছু দেওয়া হলঃ-

১)  আপনি কখনই বোমা তৈরির প্রক্রিয়া সম্বন্ধে বা তার সাথে সম্পর্কিত যে-কোনো জিনিস সম্বন্ধে গুগলে অনুসন্ধান করবেন না। এটি করলে কিন্তু ভবিষ্যতে মহা ঝামেলায় পড়ে যেতে পারেন। তাছাড়াও আপনার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে। এ ধরনের অনুসন্ধান করলে আপনি নিরাপত্তা সংস্থার রাডারে এসে যাবেন।

২)  গর্ভপাত আইনবিরুদ্ধ। কোনো সমস্যার জন্য ডাক্তারের অনুমোদনের পরই গর্ভপাত সম্ভব। গুগলে গর্ভপাত সম্পর্কিত কোনো তথ্যের অনুসন্ধান করতে যাবেন না। আপনি যদি গুগলে এই জাতীয় ব্যাপারগুলি অনুসন্ধান করেন তবে আপনাকে অনেক সমস্যায় পড়তে হতে পারে।

৩)  মুক্তির আগেই কোনো ছবি আপলোড বা ফাঁস করতে যাবেন না। এটি করলে আপনি অনেক সমস্যার সম্মুখীন হবেন নিশ্চিত। চলচ্চিত্রের পাইরেসি অপরাধ। ভারত সরকারের এ বিষয়ে কঠোর আইন রয়েছে।

৪)  গুগলে আপনি চাইল্ড পর্নোগ্রাফি নিয়ে কখনোই সার্চ করবেন না। ভারত সরকার এ ব্যাপারে কঠোর আইন করেছে। এই ধরনের সার্চ করলে POSCO আইনে জেলও যেতে হতে পারে। এছাড়াও এনকোয়ারি করতে গিয়েও যদি কিছু প্রমাণ কারুর কাছে পাওয়া যায় তাহলে তার ৫ থেকে ৭ বছরের জেল হতে পারে।